০৩:১১ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১৯ জুলাই ২০২৪, ৪ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ভদন্ত বোধিমিত্র মহাথের আর নেই

  • ডেস্ক রিপোর্ট :
  • আপডেট সময় ০৩:৪২:৩৩ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২৩
  • ৯৬৩ বার পড়া হয়েছে

বাংলাদেশ বৌদ্ধ ভিক্ষু মহাসভার মহাসচিব , চট্টগ্রামের পটিয়াস্থ পাঁচরিয়া গন্ধকুটি বিহারের অধ্যক্ষ, ভদন্ত বোধিমিত্র মহাথের (৬৫) আর নেই। (অনিচ্চা বত সাংখারা…….)

রবিবার (১৭ সেপ্টেম্বর)  রাত ০৯.৫৫ মিনিটে চট্টগ্রাম মা ও শিশু হাসপাতালে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। তিনি দীর্ঘদিন কিডনি জটিলতা সহ বিভিন্ন রোগে ভুগছিলেন।

গত ১৭ এপ্রিল প্রচন্ড শারীরিক অসুস্থতা নিয়ে চট্টগ্রামের রয়্যাল হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন ভান্তে। পরবর্তী সময়ে ভান্তে চট্টগ্রাম মেডিকেলের কিডনি বিভাগে চিকিৎসা গ্রহণের জন্যে গেলে হঠাৎ করে একদিন স্ট্রোকে আক্রান্ত হন। মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের কিডনি বিভাগের রেজিস্ট্রার ডাক্তার বিপ্লব বড়ুয়া এবং তাঁর টিমের অন্যান্য ডাক্তার নার্সদের ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় একটি সংকটময় পরিস্থিতি সামাল দেয়া সম্ভব হয়েছিল সেদিন। পরীক্ষা নিরীক্ষান্তে দেখা গেলো ভান্তের ক্রিয়েটিনিনের মাত্রা স্বাভাবিকের অনেক উপরে। কিছুটা সুস্থ হয়ে ভান্তে চলে যান কোলকাতার একটি উন্নত মানের হাসপাতালে। ক্রিয়েটিনিন এর মাত্রা স্বাভাবিক পর্যায়ে নামিয়ে আনার জন্য জরুরি ভিত্তিতে ডায়ালিসিস শুরু করার বিকল্প নেই বলে জানালেন ডাক্তার।

জানা যায়, কিন্তু একজন সহকারী সহ বিদেশে ডায়ালিসিস করানোর ব্যয় তথা আর্থিক দিক বিবেচনা করে ভান্তে দেশে ফিরে আসেন এবং কিছুটা কম খরচে চট্টগ্রাম মেডিকেলে ডায়ালিসিস চালিয়ে যান।

তিনি মা ও  শিশু  ইনটেনসিভ কেয়ার ইউনিটিতে চিকিৎসাধীন ছিলেন। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত তার মরদেহ নগরীর কাতালগঞ্জ নবপন্ডিত বিহারে রাখা আছে।

শেয়ার করুন
আরও সংবাদ দেখুন

ড. এফ দীপংকর মহাথের’র মৃত্যুতে উদ্বেগ জানিয়েছেন পার্বত্য ভিক্ষু সংঘ বাংলাদেশ

ভদন্ত বোধিমিত্র মহাথের আর নেই

আপডেট সময় ০৩:৪২:৩৩ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২৩

বাংলাদেশ বৌদ্ধ ভিক্ষু মহাসভার মহাসচিব , চট্টগ্রামের পটিয়াস্থ পাঁচরিয়া গন্ধকুটি বিহারের অধ্যক্ষ, ভদন্ত বোধিমিত্র মহাথের (৬৫) আর নেই। (অনিচ্চা বত সাংখারা…….)

রবিবার (১৭ সেপ্টেম্বর)  রাত ০৯.৫৫ মিনিটে চট্টগ্রাম মা ও শিশু হাসপাতালে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। তিনি দীর্ঘদিন কিডনি জটিলতা সহ বিভিন্ন রোগে ভুগছিলেন।

গত ১৭ এপ্রিল প্রচন্ড শারীরিক অসুস্থতা নিয়ে চট্টগ্রামের রয়্যাল হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন ভান্তে। পরবর্তী সময়ে ভান্তে চট্টগ্রাম মেডিকেলের কিডনি বিভাগে চিকিৎসা গ্রহণের জন্যে গেলে হঠাৎ করে একদিন স্ট্রোকে আক্রান্ত হন। মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের কিডনি বিভাগের রেজিস্ট্রার ডাক্তার বিপ্লব বড়ুয়া এবং তাঁর টিমের অন্যান্য ডাক্তার নার্সদের ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় একটি সংকটময় পরিস্থিতি সামাল দেয়া সম্ভব হয়েছিল সেদিন। পরীক্ষা নিরীক্ষান্তে দেখা গেলো ভান্তের ক্রিয়েটিনিনের মাত্রা স্বাভাবিকের অনেক উপরে। কিছুটা সুস্থ হয়ে ভান্তে চলে যান কোলকাতার একটি উন্নত মানের হাসপাতালে। ক্রিয়েটিনিন এর মাত্রা স্বাভাবিক পর্যায়ে নামিয়ে আনার জন্য জরুরি ভিত্তিতে ডায়ালিসিস শুরু করার বিকল্প নেই বলে জানালেন ডাক্তার।

জানা যায়, কিন্তু একজন সহকারী সহ বিদেশে ডায়ালিসিস করানোর ব্যয় তথা আর্থিক দিক বিবেচনা করে ভান্তে দেশে ফিরে আসেন এবং কিছুটা কম খরচে চট্টগ্রাম মেডিকেলে ডায়ালিসিস চালিয়ে যান।

তিনি মা ও  শিশু  ইনটেনসিভ কেয়ার ইউনিটিতে চিকিৎসাধীন ছিলেন। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত তার মরদেহ নগরীর কাতালগঞ্জ নবপন্ডিত বিহারে রাখা আছে।