০৪:১৭ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১৯ জুলাই ২০২৪, ৪ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বিদর্শনাচার্য প্রয়াত আশিন খেমিকা থের’র অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া অনুষ্ঠান

চট্টগ্রামের চাঁন্দগাও বোধিপাল আন্তর্জাতিক বিদর্শন ভাবনা কেন্দ্রের মহাপরিচালক বিদর্শনাচার্য প্রয়াত আশিন খেমিকা থের’র অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া অনুষ্ঠান
সম্পন্ন হয়েছে।
শনিবার (৫ মে) বিকেলে নগরীর চাঁন্দগাও সার্বজনীন শাক্যমুনি বিহারে অনিত্য সভায় সভাপতিত্ব করেন  বাংলাদেশ সংঘরাজ ভিক্ষু মহাসভার উপসংঘরাজ ,শাসনস্তম্ব  ধর্মপ্রিয় মহাথের।
প্রধান অতিথি হিসবে উপস্থিত ছিলেন তালসরা মুৎসুদ্দিপাড়া বিবেকারাম বিহারের অধ্যক্ষ শাসনমিত্র মহাথের, প্রধান আলোচক ছিলেন মির্জাপুর গৌতমাশ্রম বিহারের অধ্যক্ষ ধর্মসারথী ভদন্ত শাসনানন্দ মহাথের।
মঙ্গলাচরণ করেন ভদন্ত চন্দ্রজ্যোতি ভিক্ষু, উদ্বোধনী বক্তব্য রাখেন সাধিকা লাভলী বড়ুয়া ,স্বাগত বক্তব্য রাখেন সাধক সুধীর বড়ুয়া।

উল্লেখ্য চাঁন্দগাও  বোধিপাল আন্তর্জাতিক বিদর্শন ভাবনা কেন্দ্রের মহাপরিচালক বিদর্শনাচার্য আশিন খেমিকা থের (৭২)মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণ জনিত কারনে  গতকাল বুধবার (২৬ শে এপ্রিল) সন্ধ্যা ৭:৪০ ঘটিকায় নগরীর পার্কভিউ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় প্রয়াণ লাভ করেন।

তিনি চট্টগ্রাম বোয়ালখালী উপজেলার বৈদ্যপাড়া গ্রামের জন্মজাত সন্তান।

গৃহী জীবনের সাধক তেমিয়ব্রত বড়ুয়া থেকে নিজ সাধনাবলে আর্যপুত্র তেমিয়ব্রত বড়ুয়া নিজের জীবনের সবটুকু সময় উৎসর্গ করেছেন বৌদ্ধ জনসাধারণের মাঝে বুদ্ধের ধর্ম আর্যঅষ্ঠাঙ্গিক মার্গ তথা বিদর্শন ভাবনা পৌঁছে দেয়ার তরে। নিজের পরম কল্যানমিত্র দ্বয়  আর্যশ্রাবক বোধিপাল শ্রামণ এবং আর্যমাতা রানুপ্রভা বড়ুয়ার মতই এবং একান্ত ইচ্ছায় তিনি সর্বদা যে পথে নির্বান এবং সকলকে দেখিয়েছেন সে পথের সন্ধান । গত ২৫৫২ বুদ্ধাব্দ ,২০০৯ খ্রি: , ১৪ই মে মায়ানমার ইয়াংগুন ইন্টারন্যাশনাল মহাসী মেডিটেশন সেন্টার এর সুযোগ্য ছেয়াদ পরম পূজনীয় নায়ক মৈত্রী ছেয়াদ মহোদয়ের নিকট উপসম্পদা লাভ করে আর্যপুত্র তেমিয়ব্রত বড়ুয়া থেকে আর্যশ্রাবক আশিন খেমিকা পরিচিতি।

যার অকৃত্রিম অক্লান্ত পরিশ্রমে বাংলার প্রতিটি বৌদ্ধ পল্লীর আনাচে কানাচে বুদ্ধের ধর্ম তথা বিদর্শন ভাবনার জোয়ার সৃষ্টি হয়েছিল শুধু বাংলাদেশ নয় ভারতেও বিদর্শন ভাবনা প্রচার করেছেন , বর্তমানে প্রযুক্তির বদৌলতে এবং ভান্তের পান্ডিত্যবলে সারা বিশ্বের নির্বানকামী বৌদ্ধ জনসাধারণের ঘরে ঘরে বুদ্ধের নৈর্বানিক ধর্ম পৌঁছে দিয়েছেন ।

শেয়ার করুন
আরও সংবাদ দেখুন

ড. এফ দীপংকর মহাথের’র মৃত্যুতে উদ্বেগ জানিয়েছেন পার্বত্য ভিক্ষু সংঘ বাংলাদেশ

বিদর্শনাচার্য প্রয়াত আশিন খেমিকা থের’র অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া অনুষ্ঠান

আপডেট সময় ০৫:২২:২৩ অপরাহ্ন, রবিবার, ৭ মে ২০২৩
চট্টগ্রামের চাঁন্দগাও বোধিপাল আন্তর্জাতিক বিদর্শন ভাবনা কেন্দ্রের মহাপরিচালক বিদর্শনাচার্য প্রয়াত আশিন খেমিকা থের’র অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া অনুষ্ঠান
সম্পন্ন হয়েছে।
শনিবার (৫ মে) বিকেলে নগরীর চাঁন্দগাও সার্বজনীন শাক্যমুনি বিহারে অনিত্য সভায় সভাপতিত্ব করেন  বাংলাদেশ সংঘরাজ ভিক্ষু মহাসভার উপসংঘরাজ ,শাসনস্তম্ব  ধর্মপ্রিয় মহাথের।
প্রধান অতিথি হিসবে উপস্থিত ছিলেন তালসরা মুৎসুদ্দিপাড়া বিবেকারাম বিহারের অধ্যক্ষ শাসনমিত্র মহাথের, প্রধান আলোচক ছিলেন মির্জাপুর গৌতমাশ্রম বিহারের অধ্যক্ষ ধর্মসারথী ভদন্ত শাসনানন্দ মহাথের।
মঙ্গলাচরণ করেন ভদন্ত চন্দ্রজ্যোতি ভিক্ষু, উদ্বোধনী বক্তব্য রাখেন সাধিকা লাভলী বড়ুয়া ,স্বাগত বক্তব্য রাখেন সাধক সুধীর বড়ুয়া।

উল্লেখ্য চাঁন্দগাও  বোধিপাল আন্তর্জাতিক বিদর্শন ভাবনা কেন্দ্রের মহাপরিচালক বিদর্শনাচার্য আশিন খেমিকা থের (৭২)মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণ জনিত কারনে  গতকাল বুধবার (২৬ শে এপ্রিল) সন্ধ্যা ৭:৪০ ঘটিকায় নগরীর পার্কভিউ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় প্রয়াণ লাভ করেন।

তিনি চট্টগ্রাম বোয়ালখালী উপজেলার বৈদ্যপাড়া গ্রামের জন্মজাত সন্তান।

গৃহী জীবনের সাধক তেমিয়ব্রত বড়ুয়া থেকে নিজ সাধনাবলে আর্যপুত্র তেমিয়ব্রত বড়ুয়া নিজের জীবনের সবটুকু সময় উৎসর্গ করেছেন বৌদ্ধ জনসাধারণের মাঝে বুদ্ধের ধর্ম আর্যঅষ্ঠাঙ্গিক মার্গ তথা বিদর্শন ভাবনা পৌঁছে দেয়ার তরে। নিজের পরম কল্যানমিত্র দ্বয়  আর্যশ্রাবক বোধিপাল শ্রামণ এবং আর্যমাতা রানুপ্রভা বড়ুয়ার মতই এবং একান্ত ইচ্ছায় তিনি সর্বদা যে পথে নির্বান এবং সকলকে দেখিয়েছেন সে পথের সন্ধান । গত ২৫৫২ বুদ্ধাব্দ ,২০০৯ খ্রি: , ১৪ই মে মায়ানমার ইয়াংগুন ইন্টারন্যাশনাল মহাসী মেডিটেশন সেন্টার এর সুযোগ্য ছেয়াদ পরম পূজনীয় নায়ক মৈত্রী ছেয়াদ মহোদয়ের নিকট উপসম্পদা লাভ করে আর্যপুত্র তেমিয়ব্রত বড়ুয়া থেকে আর্যশ্রাবক আশিন খেমিকা পরিচিতি।

যার অকৃত্রিম অক্লান্ত পরিশ্রমে বাংলার প্রতিটি বৌদ্ধ পল্লীর আনাচে কানাচে বুদ্ধের ধর্ম তথা বিদর্শন ভাবনার জোয়ার সৃষ্টি হয়েছিল শুধু বাংলাদেশ নয় ভারতেও বিদর্শন ভাবনা প্রচার করেছেন , বর্তমানে প্রযুক্তির বদৌলতে এবং ভান্তের পান্ডিত্যবলে সারা বিশ্বের নির্বানকামী বৌদ্ধ জনসাধারণের ঘরে ঘরে বুদ্ধের নৈর্বানিক ধর্ম পৌঁছে দিয়েছেন ।