০৫:৪৮ অপরাহ্ন, সোমবার, ২০ মে ২০২৪, ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ফ্রান্সের কুশলায়ন বুড্ডিস্ট মেডিটেশন সেন্টারের কঠিন চীবর দান

  • ডেস্ক রিপোর্ট :
  • আপডেট সময় ০৯:২১:৩০ অপরাহ্ন, সোমবার, ৩০ অক্টোবর ২০২৩
  • ৭৫২ বার পড়া হয়েছে

হাজারো মানুষের অংশগ্রহণে  ফ্রান্সের রাজধানী প্যারিসের অদূরে বাংলাদেশী নিজস্ব বিহার “কুশলায়ন বুড্ডিস্ট মেডিটেশন সেন্টারে” বৌদ্ধদের অন্যতম ধর্মীয় অনুষ্ঠান দানোত্তম শুভ কঠিন চীবর দান ঘিরে মিলন মেলা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

রোববার (২৯ অক্টোবর) দানোত্তম শুভ কঠিন চীবর দানোৎসব বিহারের নিকটবর্তী সালন দো সাবরিনা মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হয়। দানোত্তম কঠিন চীবর দান উপলক্ষ্যে সকাল থেকে শুরু হওয়া এ অনুষ্ঠানে শীলগ্রহণ, বুদ্ধপূজা, সংঘ দান, অষ্টপরিষ্কার দান, কল্পতরু দান, সবশেষ বহু আকাঙ্ক্ষিত কঠিন চীবর দানসহ নানা আয়োজনে সমৃদ্ধ ছিল।

সকালে অষ্টপরিষ্কার সহ সংঘদানে পূজনীয় ভিক্ষু সংঘ

সকালের অষ্টপরিষ্কার সহ সংঘদান অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন ধম্মাচাক্কা শ্রীলকান বৌদ্ধ বিহারের অধ্যক্ষ ভদন্ত আনন্দ নায়ক থের। উপস্থিত ছিলেন ফ্রান্সের বুদ্ধগয়া প্রজ্ঞা বিহারের পরিচালক ভদন্ত কল্যাণরত্ন থের,ভদন্ত সুমনানন্দ থের প্রমুখ। পঞ্চশীল প্রার্থনা করেন জয়দত্ত বড়ুয়া।

বিকেলের দানসভা

বিকালের  দানসভায় সভাপতিত্ব করেন ফ্রান্সস্থ বার্মিজ বৌদ্ধ বিহারের অধ্যক্ষ  ছেয়াদ উ কুমারা মহাথের। প্রধান ধর্মদেশক ছিলেন নিউইয়র্ক ব্রম্ম বিহারের অধ্যক্ষ ভদন্ত ড. সত্যানন্দ মহাথের। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন- ভদন্ত প্রেমাশ্রী থের ভদন্ত তিষ্যারো থের বুদ্ধাশ্রী নায়ক থের, ভদন্ত চান্দা নন্দা থের, ভদন্ত গুণানান্দা থের। দেশনা করেন ফ্রান্সের বুদ্ধগয়া প্রজ্ঞা বিহারের আবাসিক ভদন্ত শাক্যবংশ থের। উদ্বোধক ছিলেন কুশলায়ন বুড্ডিস্ট মেডিটেশন সেন্টারের প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক ভদন্ত জ্যোতিসার থের।
অনুপম বড়ুয়া ও প্রীতিকণা বড়ুয়ার সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে শ্রীলঙ্কান দূতাবাস, ফ্রান্সের কাউন্সেলর মিস দিনেশা, প্রফেসর ড. শান্তি জয়াসিকারা বাংলাদেশ থেকে আগত শিল্পী শরণ বড়ুয়া অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন। মংগলাচরন করেন ভদন্ত বোধিশ্রী ভিক্ষু। রিটন বড়ুয়া পঞ্চশীল প্রার্থনা করেন।

বরণ সঙ্গীত পরিবেশন করেন বেতার ও টিভি শিল্পী শরণ বড়ুয়া

পরে রনজিত বড়ুয়ার পরিচালনায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশিত হয়। অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ থেকে আগত শিল্পী শরণ বড়ুয়া সহ ফ্রান্সের স্থানীয় শিল্পীরা সংগীত পরিবেশন করেন।

শেয়ার করুন
আরও সংবাদ দেখুন

বুদ্ধ পূর্ণিমায় কোন ধরনের নিরাপত্তা ঝুঁকি নেই : ডিএমপি কমিশনার

ফ্রান্সের কুশলায়ন বুড্ডিস্ট মেডিটেশন সেন্টারের কঠিন চীবর দান

আপডেট সময় ০৯:২১:৩০ অপরাহ্ন, সোমবার, ৩০ অক্টোবর ২০২৩

হাজারো মানুষের অংশগ্রহণে  ফ্রান্সের রাজধানী প্যারিসের অদূরে বাংলাদেশী নিজস্ব বিহার “কুশলায়ন বুড্ডিস্ট মেডিটেশন সেন্টারে” বৌদ্ধদের অন্যতম ধর্মীয় অনুষ্ঠান দানোত্তম শুভ কঠিন চীবর দান ঘিরে মিলন মেলা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

রোববার (২৯ অক্টোবর) দানোত্তম শুভ কঠিন চীবর দানোৎসব বিহারের নিকটবর্তী সালন দো সাবরিনা মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হয়। দানোত্তম কঠিন চীবর দান উপলক্ষ্যে সকাল থেকে শুরু হওয়া এ অনুষ্ঠানে শীলগ্রহণ, বুদ্ধপূজা, সংঘ দান, অষ্টপরিষ্কার দান, কল্পতরু দান, সবশেষ বহু আকাঙ্ক্ষিত কঠিন চীবর দানসহ নানা আয়োজনে সমৃদ্ধ ছিল।

সকালে অষ্টপরিষ্কার সহ সংঘদানে পূজনীয় ভিক্ষু সংঘ

সকালের অষ্টপরিষ্কার সহ সংঘদান অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন ধম্মাচাক্কা শ্রীলকান বৌদ্ধ বিহারের অধ্যক্ষ ভদন্ত আনন্দ নায়ক থের। উপস্থিত ছিলেন ফ্রান্সের বুদ্ধগয়া প্রজ্ঞা বিহারের পরিচালক ভদন্ত কল্যাণরত্ন থের,ভদন্ত সুমনানন্দ থের প্রমুখ। পঞ্চশীল প্রার্থনা করেন জয়দত্ত বড়ুয়া।

বিকেলের দানসভা

বিকালের  দানসভায় সভাপতিত্ব করেন ফ্রান্সস্থ বার্মিজ বৌদ্ধ বিহারের অধ্যক্ষ  ছেয়াদ উ কুমারা মহাথের। প্রধান ধর্মদেশক ছিলেন নিউইয়র্ক ব্রম্ম বিহারের অধ্যক্ষ ভদন্ত ড. সত্যানন্দ মহাথের। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন- ভদন্ত প্রেমাশ্রী থের ভদন্ত তিষ্যারো থের বুদ্ধাশ্রী নায়ক থের, ভদন্ত চান্দা নন্দা থের, ভদন্ত গুণানান্দা থের। দেশনা করেন ফ্রান্সের বুদ্ধগয়া প্রজ্ঞা বিহারের আবাসিক ভদন্ত শাক্যবংশ থের। উদ্বোধক ছিলেন কুশলায়ন বুড্ডিস্ট মেডিটেশন সেন্টারের প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক ভদন্ত জ্যোতিসার থের।
অনুপম বড়ুয়া ও প্রীতিকণা বড়ুয়ার সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে শ্রীলঙ্কান দূতাবাস, ফ্রান্সের কাউন্সেলর মিস দিনেশা, প্রফেসর ড. শান্তি জয়াসিকারা বাংলাদেশ থেকে আগত শিল্পী শরণ বড়ুয়া অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন। মংগলাচরন করেন ভদন্ত বোধিশ্রী ভিক্ষু। রিটন বড়ুয়া পঞ্চশীল প্রার্থনা করেন।

বরণ সঙ্গীত পরিবেশন করেন বেতার ও টিভি শিল্পী শরণ বড়ুয়া

পরে রনজিত বড়ুয়ার পরিচালনায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশিত হয়। অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ থেকে আগত শিল্পী শরণ বড়ুয়া সহ ফ্রান্সের স্থানীয় শিল্পীরা সংগীত পরিবেশন করেন।