০৬:০৬ অপরাহ্ন, সোমবার, ২০ মে ২০২৪, ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

কঠিন চীবর দান ঘিরে ফ্রান্সে বৌদ্ধদের মিলন মেলা

অসংখ্য মানুষের অংশগ্রহনে ফ্রান্সে দানোত্তম শুভ কঠিন চীবর দান ঘিরে বাংলাদেশী বৌদ্ধদের মিলন মেলা সম্পন্ন হয়েছে।

রবিবার (১২ নভেম্বর) প্যারিসের অদূরে সেন্ট ডেনিশের সাল লে নক্টিস মিলনায়তনে দিনব্যাপী এই অনুষ্ঠানমালার আয়োজন করে স্থা বুদ্ধগয়া প্রজ্ঞাবিহার ধ্যানকেন্দ্র।

রাজধানী প্যারিস ও এর আশপাশ শহরে বসবাসরত বাংলাদেশিসহ বিভিন্ন দেশের বৌদ্ধধর্মাবলম্বীরা উৎসাহ–উদ্দীপনা ও ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্যের মধ্য দিয়ে  কঠিন চীবর দান উৎসব পালন করেন।দানোত্তম কঠিন চীবর দান উপলক্ষে ভোর থেকে শুরু হওয়া এ অনুষ্ঠানে শীলগ্রহণ, বুদ্ধপূজা, সংঘ দান, অষ্টপরিষ্কার দান, কল্পতরু দান,  সবশেষ বহু আকাঙ্ক্ষিত কঠিন চীবর দানসহ নানা আয়োজনে সমৃদ্ধ ছিল। সন্ধ্যায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠানের সমাপনী হয়।নারী-পুরুষ ও শিশুদের উপচে পড়া ভিড়ে বিভিন্ন দেশের পুণ্যার্থী বৌদ্ধদের সমাগমে এক অভূতপূর্ব মিলনমেলায় পরিণত হয়।স্থানীয় সময় সকাল ১০টায় বিশ্বের সকল প্রাণীর সুখ কামনায় অষ্টপরিষ্কার সহ সংঘদান অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন লেখক গবেষক বিদ্যাভারতী ড. বরসম্বোধি মহাথেরো । দেশনা করেন ভদন্ত বিজয়ানন্দ মহাথের,ভদন্ত শাক্যবংশ থের, ইউরোপিয়ান বুড্ডিষ্ট সেন্টারের অধ্যক্ষ ভদন্ত চন্দ্রজ্যোতি থের প্রমুখ।

সত্যজিৎ বড়ুয়ার সঞ্চালনায় পঞ্চশীল প্রার্থনা করেন উত্তম বড়ুয়া । বিকেলে শুভ কঠিন চীবর দান সভা বুদ্ধগয়া প্রজ্ঞাবিহারের পরিচালক ভদন্ত কল্যাণ রত্ন ভিক্ষুর উদ্বোধনী বক্তব্যের মধ্য দিয়ে শুরু হওয়া দানসভায় বিদ্যাভারতী ড. বরসম্বোধি মহাথেরো সভাপতিত্ব করেন।প্রধান অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ সরকার কতৃক সমবায় ও পল্লী উন্নয়ন মন্ত্রণালয় হতে সমবায় পুরস্কার প্রাপ্ত বিসিসিইউএল’র চেয়ারম্যান কর্মবীর ভদন্ত শাসন রক্ষিত মহাথেরো। প্রধান ধর্মদেশক হিসাবে উপস্থিত ছিলেন মোগলটুলি শাক্যমুনি বুদ্ধ বিহার ও প্রজ্ঞাজ্যোতি ধ্যান কেন্দ্রের পরিচালক, ধর্মদূত ভদন্ত তিলোকাবংশ মহাথেরো। বিশেষ অতিথি ছিলেন নিউইয়র্ক বাংলাদেশ বিহারের অধ্যক্ষ ভদন্ত মুদিতারত্ন থের।

অন্যান্যদের মধ্যে ভদন্ত বিজয়ানন্দ থের, ভদন্ত চন্দ্রজ্যোতি থের,ভদন্ত বুদ্ধপ্রিয় থের,ভদন্ত বুদ্ধশ্রী থের, ভদন্ত চিত্তধর্ম থের, ভদন্ত প্রিয়রত্ন থের প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।মঙ্গলাচরণ করেন ভদন্ত আনন্দ ভিক্ষু।আশীর্বাদক হিসেবে ভিডিও বার্তা প্রদান করেন ক্যালিফোর্নিয়ার প্রজ্ঞা বিহারের প্রতিষ্ঠাতা অধ্যক্ষ ভদন্ত প্রজ্ঞাবংশ মহাথের।

 

সুমন বড়ুয়া ও অদিতি বড়ুয়ার সঞ্চালনায় পঞ্চশীল প্রার্থনা করেন চন্দন বড়ুয়া। স্বাগত বক্তব্য রাখেন অনুষ্ঠান উদযাপনী পরিষদের সভাপতি দেবদাস বড়ুয়া। ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন অনুষ্ঠান উদযাপনী পরিষদের অর্থ সম্পাদক কানন বড়ুয়া।

 

উদ্বোধনী সংগীত পরিবেশন করেন চয়ন বড়ুয়া ও সহশিল্পী বৃন্দ। প্রবাসে অবস্থান ও নানা প্রতিকূলতা সত্ত্বেও বৌদ্ধদের দানশ্রেষ্ঠ এ কঠিন চীবর দান পুণ্যোৎসবে অংশগ্রহণ করে পেরে পুণ্যার্থী উপাসক-উপাসিকাদের মহামিলনের আশাজাগানিয়া আনন্দের স্ফুরণ ছিল দেখার মতো। পূজনীয় ভিক্ষুসংঘরাও কঠিন চীবর দানের পুণ্যবার্তায় সবার প্রতি মৈত্রী-করুণা চিত্তে আশীর্বাদ-পুণ্যদান করেন। পাশাপাশি নিরবচ্ছিন্ন নানা অবক্ষয় ও অস্থির পৃথিবীতে শান্তির সুবাতাস প্রবাহিত হোক—এ শুভকামনায় বিশ্বশান্তি প্রার্থনা করেন।

পরে সঞ্জয় বড়ুয়ার সঞ্চালনায় চয়ন বড়ুয়ার পরিচালনায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশিত হয়। এতে প্যারিসের স্থানীয় শিল্পীরা সংগীত পরিবেশন করেন। বক্তারা বলেন, বহুজনের হিত ও বহুজনের সুখের জন্য সারাবিশ্বে বুদ্ধের সত্যের বানী প্রচার করেছিলেন। মহামানব গৌতম বুদ্ধের অহিংস নীতির আলোকে বিশ্বব্যাপী শান্তি ও সম্প্রীতিও প্রতিষ্ঠা করতে হবে

শেয়ার করুন
আরও সংবাদ দেখুন

বুদ্ধ পূর্ণিমায় কোন ধরনের নিরাপত্তা ঝুঁকি নেই : ডিএমপি কমিশনার

কঠিন চীবর দান ঘিরে ফ্রান্সে বৌদ্ধদের মিলন মেলা

আপডেট সময় ০৯:১০:৪১ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৩ নভেম্বর ২০২৩

অসংখ্য মানুষের অংশগ্রহনে ফ্রান্সে দানোত্তম শুভ কঠিন চীবর দান ঘিরে বাংলাদেশী বৌদ্ধদের মিলন মেলা সম্পন্ন হয়েছে।

রবিবার (১২ নভেম্বর) প্যারিসের অদূরে সেন্ট ডেনিশের সাল লে নক্টিস মিলনায়তনে দিনব্যাপী এই অনুষ্ঠানমালার আয়োজন করে স্থা বুদ্ধগয়া প্রজ্ঞাবিহার ধ্যানকেন্দ্র।

রাজধানী প্যারিস ও এর আশপাশ শহরে বসবাসরত বাংলাদেশিসহ বিভিন্ন দেশের বৌদ্ধধর্মাবলম্বীরা উৎসাহ–উদ্দীপনা ও ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্যের মধ্য দিয়ে  কঠিন চীবর দান উৎসব পালন করেন।দানোত্তম কঠিন চীবর দান উপলক্ষে ভোর থেকে শুরু হওয়া এ অনুষ্ঠানে শীলগ্রহণ, বুদ্ধপূজা, সংঘ দান, অষ্টপরিষ্কার দান, কল্পতরু দান,  সবশেষ বহু আকাঙ্ক্ষিত কঠিন চীবর দানসহ নানা আয়োজনে সমৃদ্ধ ছিল। সন্ধ্যায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠানের সমাপনী হয়।নারী-পুরুষ ও শিশুদের উপচে পড়া ভিড়ে বিভিন্ন দেশের পুণ্যার্থী বৌদ্ধদের সমাগমে এক অভূতপূর্ব মিলনমেলায় পরিণত হয়।স্থানীয় সময় সকাল ১০টায় বিশ্বের সকল প্রাণীর সুখ কামনায় অষ্টপরিষ্কার সহ সংঘদান অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন লেখক গবেষক বিদ্যাভারতী ড. বরসম্বোধি মহাথেরো । দেশনা করেন ভদন্ত বিজয়ানন্দ মহাথের,ভদন্ত শাক্যবংশ থের, ইউরোপিয়ান বুড্ডিষ্ট সেন্টারের অধ্যক্ষ ভদন্ত চন্দ্রজ্যোতি থের প্রমুখ।

সত্যজিৎ বড়ুয়ার সঞ্চালনায় পঞ্চশীল প্রার্থনা করেন উত্তম বড়ুয়া । বিকেলে শুভ কঠিন চীবর দান সভা বুদ্ধগয়া প্রজ্ঞাবিহারের পরিচালক ভদন্ত কল্যাণ রত্ন ভিক্ষুর উদ্বোধনী বক্তব্যের মধ্য দিয়ে শুরু হওয়া দানসভায় বিদ্যাভারতী ড. বরসম্বোধি মহাথেরো সভাপতিত্ব করেন।প্রধান অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ সরকার কতৃক সমবায় ও পল্লী উন্নয়ন মন্ত্রণালয় হতে সমবায় পুরস্কার প্রাপ্ত বিসিসিইউএল’র চেয়ারম্যান কর্মবীর ভদন্ত শাসন রক্ষিত মহাথেরো। প্রধান ধর্মদেশক হিসাবে উপস্থিত ছিলেন মোগলটুলি শাক্যমুনি বুদ্ধ বিহার ও প্রজ্ঞাজ্যোতি ধ্যান কেন্দ্রের পরিচালক, ধর্মদূত ভদন্ত তিলোকাবংশ মহাথেরো। বিশেষ অতিথি ছিলেন নিউইয়র্ক বাংলাদেশ বিহারের অধ্যক্ষ ভদন্ত মুদিতারত্ন থের।

অন্যান্যদের মধ্যে ভদন্ত বিজয়ানন্দ থের, ভদন্ত চন্দ্রজ্যোতি থের,ভদন্ত বুদ্ধপ্রিয় থের,ভদন্ত বুদ্ধশ্রী থের, ভদন্ত চিত্তধর্ম থের, ভদন্ত প্রিয়রত্ন থের প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।মঙ্গলাচরণ করেন ভদন্ত আনন্দ ভিক্ষু।আশীর্বাদক হিসেবে ভিডিও বার্তা প্রদান করেন ক্যালিফোর্নিয়ার প্রজ্ঞা বিহারের প্রতিষ্ঠাতা অধ্যক্ষ ভদন্ত প্রজ্ঞাবংশ মহাথের।

 

সুমন বড়ুয়া ও অদিতি বড়ুয়ার সঞ্চালনায় পঞ্চশীল প্রার্থনা করেন চন্দন বড়ুয়া। স্বাগত বক্তব্য রাখেন অনুষ্ঠান উদযাপনী পরিষদের সভাপতি দেবদাস বড়ুয়া। ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন অনুষ্ঠান উদযাপনী পরিষদের অর্থ সম্পাদক কানন বড়ুয়া।

 

উদ্বোধনী সংগীত পরিবেশন করেন চয়ন বড়ুয়া ও সহশিল্পী বৃন্দ। প্রবাসে অবস্থান ও নানা প্রতিকূলতা সত্ত্বেও বৌদ্ধদের দানশ্রেষ্ঠ এ কঠিন চীবর দান পুণ্যোৎসবে অংশগ্রহণ করে পেরে পুণ্যার্থী উপাসক-উপাসিকাদের মহামিলনের আশাজাগানিয়া আনন্দের স্ফুরণ ছিল দেখার মতো। পূজনীয় ভিক্ষুসংঘরাও কঠিন চীবর দানের পুণ্যবার্তায় সবার প্রতি মৈত্রী-করুণা চিত্তে আশীর্বাদ-পুণ্যদান করেন। পাশাপাশি নিরবচ্ছিন্ন নানা অবক্ষয় ও অস্থির পৃথিবীতে শান্তির সুবাতাস প্রবাহিত হোক—এ শুভকামনায় বিশ্বশান্তি প্রার্থনা করেন।

পরে সঞ্জয় বড়ুয়ার সঞ্চালনায় চয়ন বড়ুয়ার পরিচালনায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশিত হয়। এতে প্যারিসের স্থানীয় শিল্পীরা সংগীত পরিবেশন করেন। বক্তারা বলেন, বহুজনের হিত ও বহুজনের সুখের জন্য সারাবিশ্বে বুদ্ধের সত্যের বানী প্রচার করেছিলেন। মহামানব গৌতম বুদ্ধের অহিংস নীতির আলোকে বিশ্বব্যাপী শান্তি ও সম্প্রীতিও প্রতিষ্ঠা করতে হবে